4 Responses

  1. ABUSAIF
    ABUSAIF at |

    [q]””বাংলাদেশের ইসলামপন্থী আন্দোলনের নেতৃত্ব পর্যায়ের [b][u]শ্রম বিভাজনে[b/][u/] তাই আজ একটি আমুল পরিবর্তন দরকার। দরকার স্থান ও কালের প্রেক্ষিতে স্ব স্ব দায়িত্ব নির্ধারণ-পূর্বক টিওআর [b][u](টার্মস অফ রেফারেন্স)[b/][u/] চূড়ান্ত করা এবং পলিসি মেকিং এর কাজে পলিসি মেকারদের এবং পলিসি বাস্তবায়নের কাজে বাস্তবায়ন কর্তৃপক্ষ তথা উপযুক্ত ম্যানেজার পর্যায়ের লোক কে দায়িত্ব প্রদান করে, সে মোতাবেক, সকল কার্যসূচি বাস্তবায়নের জন্য সঠিক মনিটরিং এবং মূল্যায়নের (monitoring and evaluation) ব্যবস্থা গ্রহণ করা।””[q/]

    শ্রম বিভাজন, টার্মস অব রেফারেন্স, মনিটরিং, ইভ্যালুয়েশন ইত্যাদি ব্যাপারগুলো এখন অনেকটাই গতবাঁধা বৃত্তবন্দী মনে হয়!

    কে কার চেয়ে কম বোঝেন সেটা নির্ধারণ করাই দুরূহ!!

    Reply
  2. আবু সুলাইমান
    আবু সুলাইমান at |

    “কে কার চেয়ে কম বোঝেন সেটা নির্ধারণ করাই দুরূহ!!”— ভাই আবু সাইফ। একেবারে হালকা করে বলে ফেললেন কথাটি। জানি না কেন? আপনি হয়তো ব্যাখ্য দিতে পারবেন। তবে এভাবে মন্তব্য না করে ভুল ত্করুটি বের করে তার সমাধান আরো ভাল কি হতে পারে তা প্রস্তাব করলে ভাল হতো। এতে আমরাও উপকৃত হতাম। আমরা চাই উন্নয়ন, ক্রমাগত উন্নয়ন, অগ্রসরতা। যত বেশি অর্জন তত বেশি ক্ষুধা। তাই থামলে চল্বেনা যেমন তেমন অন্যদের না থামিয়ে পরামর্শ দিতে হবে কিভাবে গতবাঁধা- বৃত্তবন্দী ফাঁড থেকে বের হয়ে আসা যায়। ধন্যবাদ। আমাকে পরামর্শ না দিলেও এমন কোন সিস্টেম যা সংগঠন পরিচালনায় আরো বেশি ভুমিকা রাখবে তা দিবেন আশা করি।

    Reply
  3. আবু সুলাইমান
    আবু সুলাইমান at |

    “কে কার চেয়ে কম বোঝেন সেটা নির্ধারণ করাই দুরূহ!!”– সাইফ ভাই, এটি কোন বিষয় নয়। এর সমাধান খুবই সোজা। এসব সমাধান করেই কিন্তু সমাজ কাঠামো এগিয়ে চলছে। প্রাইমারী শিক্ষকের নিকট যা খুবই জটিল ভাঋশি শিক্ষকের নিকট তাই প্রাইমারী লেভেলের আলোচনা। আর যে বেশি যোগ্য? — বিষয়টি তো আপেক্ষিক। তাই বলে তো এমন নয় যে, সর্বোচ্চ ১০% ব্যতিক্রম বাদে, প্রাইমারী – সেকেন্ডারি- টারশিয়ারি লেভেল কে আমরা অস্বীকার করব।

    Reply

Leave a Reply