15 Responses

  1. Mazhar Maruf
    Mazhar Maruf at |

    With due respect to Salihi Bhai আপনি বেশি attacking হএ যাচ্ছেন । আপনি রেজা ভাই এর নাম শুনেন নাই এইটা বলে কি বুজালেন? আপনি নাম ই শুনেন নি তাহলে উনার বেপারে বলার right person আপনি সম্ভবত না। আমরা খুব খুশি হব যদি সমসাময়িক কেউ বিস্তারিত লেখেন। if possible focus on 2009 as it is close to you. Extremely sorry br to write in this way as i expected more liberal writing from you. Thanks for your understanding.

    Reply
  2. Md Johirul Islam
    Md Johirul Islam at |

    Thanks. This writing is necessary

    Reply
  3. yousuf
    yousuf at |

    চালিয়ে যান । আমার মতে তখনকার সময়ের পক্ষ বিপক্ষ লোক গুলো আছে। এক পক্ষে আওয়াজ এসেছে । এখন অপর পক্ষ এগিয়ে আসা উচিত । তখনকার বিজয়ী পক্ষ হয়ত ভেবেছে দলীয় কোন্দল নিয়ে ঘাটাঘাটি করলে দলেরই ক্ষতি তাই পরবর্তীদের জন্য কোন ডকুমেন্ট করেননি। অপর পক্ষও এতদিন চুপ ছিল এবং হয়তো নিজেদের ভুল গুলো মূল্যায়ন করবে।কিন্তু জামায়াত শিবিরের এখন প্রতিকূল সময় যাচ্ছে তাই অনেক ঢেউ আসবে যদি নৌকা ডুবে ।

    Reply
  4. Monu
    Monu at |

    একটু ছোটখাট আকারে হলেও ফরীদ ভাইয়ের বিরাশির সাইকোলজী মনে হয় আমি খানিকটা আঁচ করতে পারি। ২০০৫ এ কর্মী হয়ে ২০০৭ এর মার্চ পর্যন্ত ছাত্রশিবিরে কাজ করেছিলাম। ২০০৬ এ সাথী হয়ে স্কুল বিভাগে সহকারী হিসেবে ছয় মাস খুব জোরে সোরে দায়িত্ব পালনের পর মনে মনে ভেবে রেখেছিলাম যে, আগামীতে যদি মূল দায়িত্ব পেয়ে যাই তাহলে কাজ করে ফাটিয়ে দিবো। সব ঠিকঠাক ছিলো, কিন্তু শেষে সংগঠনের অন্য এক বিভাগে ট্রান্সফার করে দিলো। এমন রাগ হয়েছিলাম, থানার যে সাথী বৈঠকে আমাকে বিদায় দেবার কথা সেটাতেই উপস্থিত হইনাই। তারপর দুই সপ্তাহের জন্যে ঢাকা থেকে পালিয়ে গিয়েছিলাম। ফরীদ ভাইরা তো সংগঠনের একদম মাথায় ছিলেন, তাঁরাও খুব ডেসপারেটলি সংগঠন নিয়ে ভালো ভালো জিনিসই চিন্তা করে রেখেছিলেন, মাঝ পথে বাধা পাওয়ায় খুব বেশি মনোকষ্ট পেয়েছেন, তারওপর অনেকে ভ্রু-কুচকানীও সহ্য করেছেন। এজন্য উনিও আমার মত পালিয়ে গিয়েছেন। উনার দু:খ টা আমার দু:খের চাইতে অনেক বড়, কোথায় ওয়ার্ড আর কোথায় কান্ট্রি, অতএব উনি এখনো পুরো বিষয়টা ভুলতে পারছেননা। আল্লাহ ইসলামকে অবশ্যই বিজয়ী করবেন, সে বিজয় হয়তো আমার বা ফরীদ ভাইয়ের হাত দিয়ে হবে না। কিন্তু বিজয় ও আল্লাহর সাহায্য যখন আসবে, তখন উনারাই সৌভাগ্যবান হবেন যারা সেই বিজয়ের জন্যে জান ও মাল বাজি রেখে দেবেন। আর তারাই দুর্ভাগা হবে যারা বিজয়টা দেখবে, কিন্তু সে বিজয়ের ভাগিদার হবে না। ইসলামের প্রতি ভালবাসা আছে, ইসলামকে বিজয়ী শক্তি হিসেবে দেখতে আগ্রহী (সব মুসলমানই আগ্রহী) এমন প্রত্যেকটি মানুষের প্রতি শুভকামনা রইলো।

    Reply
  5. Rokon Uddin
    Rokon Uddin at |

    ফরিদ ভাইয়ের লেখা পড়েছি খুব মনযোগ দিয়ে। এখন আপনার লেখা পেয়ে ভালো লাগলো। এগিয়ে যান। পরবর্তী পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম।

    Reply
  6. Zubayer
    Zubayer at |

    সালেহি ভাই আপনার কাছে অনুরোধ থাকবে ২০০৯ সাল কে নিয়ে লিখবেন ১৯৮২ নয়। ১৯৮২ সালে আপনি ছিলেন না (আপনি কোন দিন ফরিদ ভাইয়ের কোনদিন নামও শুনেননি)। ১৯৮২ সালে যাই ঘটে থাকুক আপনার কাছে কোন ফার্স্ট হ্যান্ড ইনফরমেশন নাই। আপনি শুনেছেন বা পড়েছেন, এর ভিত্তিতে ফরিদ ভাইয়ের বক্তব্যের যুক্তিখণ্ডন কতটুকু যৌক্তিক হবে তা প্রশ্ন সাপেক্ষ।

    Reply
    1. আবুল কালাম আজাদ
      আবুল কালাম আজাদ at |

      শতভাগ একমত

      Reply
  7. ABU SULAIMAN
    ABU SULAIMAN at |

    Discussion, Sharing, comment and counter comments are not new ones in the history. According to our belief, the journey of the time has been started by the order of Allah STW. And it is the sunnah of both the Creator Allah STW and the the prophets as well. The last revealed guidance the “AL QURAN” and the biography of last prophet “AL HADITH” are full of announcement of new ideas, rejection of the traditional jaheel ideas, argument in favor of the QURAN and counter argument against the Musrik……
    It is proven for all movement, either political, social, or cultural. Even the great thinker Mawdudi RA started his journey of revivalism through this way. Many of the -the then- intellectuals expressed their reaction violently, which are not acceptible to us and also not so decent.

    Farid Ahmed Reza has published his views on 1982. He no longer demand his views 100% correct or right.

    If you, Br Salehi, have enough information, you may express your opinion, but of course in a decent way. You can’t never say like- যাইহোক, শ্রদ্ধেয় ফরিদ আহমেদ রেজা ভাইয়ের লিখায় আমি যা বুঝলাম উনি হলেন সম্পূর্ণ নির্দোষ এবং মাজলুম ব্যক্তি। যত দোষ সব মুজাহিদ সাহেব, নিজামি সাহেব, নজরুল ইসলাম খাদেম সহ ওনাদের।

    Again, its not your, Br Salehi, right and responsibility to be judgmental about the readers, commenter or sharer of the writing of the Fariz A Reza and you can’t say like- যারা এই মতামতের প্রতীক্ষায় ছিলেন তারা খুব খুশি আর আনন্দে শেয়ার করছেন। বিশেষ করে ইসলামী ছাত্র মজলিস তাদের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতিসহ অনেক জনশক্তি খুব খুশি আর আনন্দে শেয়ার ও প্রচার করছেন। কেউ কেউ কিছু প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন, কেউ কেউ ওনাকে দায়মুক্তি দিয়েছেন যাদের কে ওনার সম্পর্কে ভুল ধারণা দেয়া হয়েছিল অন্য পক্ষের কোন বক্তব্য ছাড়ায়। কেউ কেউ খুব বেশি আহুতও হয়েছেন লিখা পরবর্তী নোংরা মতামত এর জন্য বিশেষ করে অন্য পক্ষের কোন মন্তব্য না থাকার কারণে। আমাদের উদারপন্থী ভাইগণ (What type of addressing it is! It is not expected) এ ধরনের লিখা বেশী হওয়ার ব্যাপারে আনুপ্রেরনা দিচ্ছেন, যুক্তি দিচ্ছেন। এ যেন ঠিক ৫ জানুয়ারী নির্বাচন অথবা বিদেশে থাকা কোন আসামীর War Crime Tribunal এর বিচার এর মত। আয়োজক পক্ষ গনতন্ত্র রক্ষার নির্বাচন করবে কাউকে ধরে এনে বা বাধ্য করে, যেহেতু অন্য পক্ষ আসবে না এই নির্বাচনে অতএব আমাদের সাংবিধান রক্ষা করতে হবে। অথবা আসামী যেহেতু আসবে না তাই স্বাধীনতার স্বার্থে দ্রুত বিচার করতে হবে। ঠিক তেমনি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামি এবং ইসলামি ছাত্রশিবির নিয়ে ব্লগে বা সোশ্যাল মীডীয়ায় সমলোচনা করতে থাকতেই হবে তাদের সংশোধন ও কল্যাণের জন্য যদিও কোনদিন তারা এই অযৌক্তিক বিতর্কে না আসুক।সেলুকাস এ পৃথিবী।

    ……….ভ্রত্তিশিবির এর কমিটি সারা জীবন যে এক সদস্যের এবং জেলে যাবার আগ পর্যন্ত এর দায়িত্বে ছিলেন আমাদের সকলের কলিজার টুকরা শিবিরের প্রথম সি পি মীর কাশেম আলি মিন্টু ভাই, সদস্য সম্মেলনের দিন সাভার থেকে মিষ্টি এনে সদস্যদের খাওয়ানো, হৃদয় মেশানো ভালবাসা আর সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বানানোর সপ্নের কথা টা তিনি যদি জানতেন আমি নিশ্চিত তিনি এই ধৃষ্টতা (!!!!!!!!!!!) দেখাতেন না।

    In one point you said-
    এর কয়েকটা বাস্তব কারণও আছে। ব্লগের যে ভাইটি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামি এবং ইসলামি ছাত্রশিবির এর নেতৃবৃন্দকে নিয়ে লিখতে বা সমালোচনা করতে বেশি তৎপর বাংলাদেশ এ তিনি শিবির এর কর্মী বা সমর্থক ছিলেন SSC বা HSC শেষ করেই বিলাতে এসেছেন যে কারণে বাংলাদেশ এর বাস্তব আভিজ্ঞতা নেয়ার সুযোগ পান নি এবং সমলচনা করতে গিয়ে মাঝে মাঝে এমন সব তথ্য নিয়ে এসেছেন আন্দোলন যারা সামান্য বোঝেন তাদের কাছে খুবই আপত্তিকর লাগে আর সমালোচনার মূল উদ্দেশ্য বুঝতে কিছু বাকি থাকে না। If this is the scale for measuring any one’s quality, then whats about the MAWDUDU RA, who never joined any organ, for a single day or a week.

    Finally, You have written– সম্প্রতি দুইজন তরুণ গবেষককে এই ব্লগের লিঙ্ক টা দিয়ে আনুরোধ করেছিলাম খুঁজে দেখতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামি এবং ইসলামি ছাত্রশিবির এর সত্যিকার নেয়ার মত কিছু জিনিস এখান থেকে বের করতে। তাদের কাছে যা পেয়েছি এবং আমি যা দেখেছি বাংলাদেশ আন্দলেনের ক্ষেত্রে ব্লগটি ইনফরমেশন এর চেয়ে আবেগকে, রিয়ালিটির চেয়ে থিউরিকে, আর ৫/৭/১০ বছর আগে কে কোথায় কি বলেছেন বর্তমান বিবেচনা না করে সেগুলির বেশি গুরুত্ব দিতে।

    What a senseless comment it is? You should have careful before writing, recheck before publishing….

    Requested to be more careful and honorific to others while thinking, writing, expressing views….

    Reply
  8. Dr. Shahin
    Dr. Shahin at |

    Sorry salehi vai, apnar moto ekjon saleh manusher kas theke evabe karo somalochona unexpected. Aro mature lekha expect korcilam.

    Reply
  9. Fahim Chowdhury
    Fahim Chowdhury at |

    আপনার লেখার কিছুই হয় না। যুক্তি কি জিনিস আপনি বোঝেন না। পড়ালেখা করেন। ১০ বছর পড়ালেখার পর লিখার চিন্তা ভাবনা করবেন

    Reply
  10. একসময় ছাত্রশিবির করতাম!
    একসময় ছাত্রশিবির করতাম! at |

    ধন্যবাদ @মাহবুব সালেহী ভাই, যদিও লেখা এমন আক্রমণাত্মক আশা করি নাই,

    @আশরাফ আজীজ ইশরাক ফাহিম এর সাথে এই ব্যাপারে একমত “আমি চাচ্ছি ধারা বিবরনী, কোন কনক্লুশন না। সিদ্ধান্তটা আমি নেব””

    তবুও লিখেন, কিছু ঘটনা তো অন্তত জানি।

    Reply
  11. hasan akandha
    hasan akandha at |

    মোবারাকবাদ সালেহিন ভাই। আপনি চালিয়ে যান।সত্য সবসময় তেতো। সত্য তিতা লাগতে শুরু হইছে।মুখোশ উন্মোচন হলে সবাই বুঝতে পারবে। আর যারা উত্তেজিত হয়ে কমেন্ট করছেন তাদের জেনে নেয়া দরকার শিবিরের Central Office Secretary কে কতটুকু ইতিহাস সচেতন হতে হয়। ফরিদ ভাইদের বলি দেশের বাইরে থেকে যদি আন্দোলনকে সহযোগিতা করতে পারেন তাহলে মোবারাকবাদ আর না হয় আমাদেরকে আমাদের মত চলতে দিন। আমাদের কে নিয়ে আপনার ইতিহাস চর্চার দরকার নেই। সুংগঠনের একটি ভাইও যদি আপনার কারনে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এর দায় আপনাকে নিতে হবে। ব্যক্তিগত চাওয়া পাওয়ার হিসেব সবার সামনে তুলে না ধরলেই ভালো হতো। আল্লাহ কি শ্রেষ্ঠ বিচারক নন? আল্লাহ সুবহানাতা’আলা আপনার ভালো করুন। ইসলাম ও ইসলামি আন্দোলনকে হিফাযত করুন। আমীন।।

    Reply
  12. নাইট ফিউরি
    নাইট ফিউরি at |

    গুরুত্ববহ এ বিষয়ে আপনার মতো একজন নির্ভরযোগ্য ব্যক্তি লিখবেন জেনে খুশী হয়েছি। কারন এক অজানা কারনে নেতৃবৃন্দ এই বিষয়টি এড়িয়ে যেতেই পছন্দ করেন, দেখে আসছি। তবে ১৯৮২ নিয়ে না লিখে আপনার প্রত্যক্ষ করা রেজাউল করিম ভাইয়ের সময়কার বিতর্ক বিষয়টি পরিষ্কার করলেই বোধহয় ভালো হতো।

    Reply
  13. Dr Belayet
    Dr Belayet at |

    সালেহী ভাই সুইডেন চলে গিয়েছেন ২০০৯ এর কোন মাসে ? উল্লেখ্য দুঃখজনক অধ্যায়টি ডিসেম্বর ২০০৯ থেকে ফেব্র ২০১০ এরা

    Reply
  14. Dr Belayet
    Dr Belayet at |

    সালেহী ভাই সুইডেন চলে গিয়েছেন ২০০৯ এর কোন মাসে ? উল্লেখ্য দুঃখজনক অধ্যায়টি ডিসেম্বর ২০০৯ থেকে ফেব্র ২০১০ এর ।

    Reply

Leave a Reply